খুলনা | রবিবার | ২১ জুলাই ২০২৪ | ৫ শ্রাবণ ১৪৩১

পর্দা নামল টোকিও অলিম্পিকের

ক্রীড়া প্রতিবেদক |
০৭:১৯ পি.এম | ০৮ অগাস্ট ২০২১

পর্দা নামল ‘গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’ খ্যাত অলিম্পিকের। আজ টোকিও অলিম্পিক স্টেডিয়ামে সমাপনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে শেষ হল ১৬ দিনের ক্রীড়াযজ্ঞ। মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে এবারের আসর এক বছর দেরীতে শুরু হয়। আগামী আসর ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিস শহরে অনুষ্ঠিত হবে ২০২৪ সালে (২৬ জুলাই-১১ই আগস্ট)।

এদিকে টোকিও অলিম্পিক ২০২০ আসরে শ্রেষ্ঠত্ব বুঝে পেয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সর্বোচ্চ পদক জয়ী মার্কিনরা জিতেছে সর্বোচ্চ সোনার মেডেলও। ৩৯ সোনা, ৪১ রুপা ও ৩৩ ব্রোঞ্জ জিতে সর্বোচ্চ ১১৩টি পদক জিতেছে তারা।

আসরে সেরা পদক জয়ী তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে আছে চীন। ৩৮ সোনা, ৩২ রুপা ও ১৮ ব্রোঞ্জ জিতেছে চাইনিজ অ্যাথলেটরা। সেরা স্বর্ণ পদক জয়ী তালিকায় আয়োজক দেশ জাপান তিনে থাকলেও মোট পদক জয়ী তালিকায় আছে পঞ্চম স্থানে (৫৮টি)। আসরে সেরা তিনে ৭১টি পদক নিয়ে আছেন রাশিয়ানরা। সেরা পাঁচে ৬৫ পদক নিয়ে চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে গ্রেট ব্রিটেন।

এখন পর্যন্ত পদক তালিকায় নাম উঠেছে ৯৩ টি দেশের। এর মধ্যে অন্তত একটি সোনার পদক জেতা দেশের সংখ্যা ৬৫টি। জ্যাভলিন থেকে পাওয়া সোনায় প্রথমবারের মতো ভারত ঢুকে পড়েছে এই তালিকায়। ১৬টি দেশ এখন পর্যন্ত রুপার পদকেই তৃপ্তি খুঁজছে। ১২টি দেশ পেয়েছে ব্রোঞ্জের স্বাদ।

একবছর পিছিয়ে জাপানের রাজধানী টোকিওতে বসেছিল ১১ হাজারেরও বেশি অ্যাথলেটের ক্রীড়াযজ্ঞ। তাদের সাথে ছিল আরো কয়েক হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারি। আয়োজক, সম্প্রচারক, স্বেচ্ছাসেবক থেকে শুরু করে অন্তত ২৫ থেকে ৩০ হাজার মানুষের মহাযজ্ঞ। করোনা মহামারীর মাঝেও সবধরনের বাধা-বিপত্তি দূরে ঠেলে ২৩ জুলাই জ্বালানো হয় টোকিও গেমসের মশাল। ১৬ দিন ধরে জ্বলার পর অবশেষে নিভিয়ে দেয়া হলো। তিন বছর পর সেই মশালটিই জ্বলে উঠবে আবার প্যারিসে (ফ্রান্স)।
 

প্রিন্ট

আরও খবর