খুলনা | বুধবার | ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮ ফাল্গুন ১৪৩০

উত্তর কোরিয়ায় প্রবল বৃষ্টিতে সৃষ্ট বন্যা, হাজারো বাড়ি বিধ্বস্ত

খবর প্রতিবেদন |
০১:৪৪ পি.এম | ০৮ অগাস্ট ২০২১

প্রবল বৃষ্টিতে সৃষ্ট বন্যায় উত্তর কোরিয়ায় হাজারের বেশি বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তলিয়ে গেছে ফসলি জমি। নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে অন্তত পাঁচ হাজার মানুষকে। দেশটির রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধ্যম কেসিটিভি রোববার এই খবর জানিয়েছে।

কেসিটিভির ভিডিও ফুটেজে দেখা যাচ্ছে, বন্যায় বাড়ির ছাদ পর্যন্ত পানিতে তলিয়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে অনেক সেতু। হাজার হাজার হেক্টর ফসলি জমি প্লাবিত হয়েছে। রাস্তাঘাট পানির নিচে। অনেক নদীর বাঁধও ভেঙে গেছে। যোগাযোগ ও বিদ্যুৎ সেবা এখন বিচ্ছিন্ন।

ভয়াবহ এই বন্যার কবলে পড়েছে দেশটির সাউথ হ্যামগিউ প্রদেশ। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বন্যাকবলিত মানুষজনকে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন ত্রাণ ও অন্যান্য সহায়তা পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন বলে কেসিটিভির ওই প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।  

উত্তর কোরিয়ার আবহাওয়া দফতরের সহকারী প্রধান রি ইয়ং ন্যাম জানিয়েছেন, সবদিকে প্লাবিত হয়ে অবস্থা খারাপ। আবারও বৃষ্টি হলে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হবে। আগামী ১০ আহস্ট পর্যন্ত দেশটির উত্তর উপকূলে আরও বৃষ্টি হবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছেন তিনি।  

দরিদ্রকবলিত একনায়কতান্ত্রিক সরকার গত জুনে দেশটিতে চরম খাদ্য সংকট তৈরি হওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে। এর মধ্যে শুরু হয়েছে বন্যা। দীর্ঘদিন ভঙ্গুর অবস্থায় থাকা কৃষিব্যবস্থা বন্যার কারণে আরও হুমকির মুখে পড়েছে। খাবারের জোগান নিয়ে এখন উদ্বেগ বাড়বে।

গত মাসে জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (এফএও) পূর্বাভাস দিয়ে বলেছে, চলতি বছর উত্তর কোরিয়ায় ৮ লাখ ৬০ হাজার টন খাদ্যের সংকট রয়েছে। এর জেরে দেশটিতে কঠিন সময়ের মুখোমুখি হতে পারে বলেও তখন সতর্ক করে দিয়েছিল সংস্থাটি।  

দুর্বল অবকাঠামো ও বহির্বিশ্বের সাথে বিচ্ছিন্ন থাকার কারণে উত্তর কোরিয়ায় প্রাকৃতিক দুর্যোগ সব সময় প্রকট হয়। বন উজারের কারণে দেশটিতে বন্যার ঝুঁকি বহুগুণ বেড়েছে বলে ধারণা বিশেষজ্ঞদের। গত বছর দেশটিতে টাইফুনের পর বন্যায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছিল।

প্রিন্ট

আরও খবর